ভ্রমণ ডায়েরী

Home News Contact About
1 / 5
2 / 5
3 / 5
3 / 5
3 / 5

স্বপ্নের লাদাখ ভ্রমণ- ন্যাড়া পাহাড়ের টানে(পর্ব ১৫)

আল-আমিন সরকার

সব কিছু যদি ঠিক থাকে তাহলে আজ লাদাখ যাওয়ার স্বপ্ন পূরণ হতে চলেছে। ২৯ ঘণ্টার টানা জার্নির ধকল পুরোপুরি না কাটতেই সকাল ৬ টায় ঘুম থেকে উঠে গোসল করে লাদাখের উদ্দেশে রওনা দেই আনুমানিক ৭ টার দিকে। রাতে যখন এই হোম স্টে তে এসে উঠেছি তখন জানার সুযোগ হয়নি বা ইচ্ছা হয়নি যে রুম ভাড়া কত করে ঠিক করেছেন সুজন ভাই। হোটেল থেকে চেক আউট করার সময় তিন রুমের জন্য বিল দিলেন মাত্র পনেরশো রুপি। আমি কিছুটা অবাক হলাম এই ভেবে যে, এত বড় রুম আবার সুযোগ-সুবিধা ও নেহাত কম নয় কিন্তু ভাড়া এত কম?....আরো পড়ুন

স্বপ্নের লাদাখ ভ্রমণ- ন্যাড়া পাহাড়ের টানে| মোঘল রোড স্পেশাল (পর্ব ১৪)

আল-আমিন সরকার

জম্মুতে নেমে সবাই ফ্রেশ হয়ে নিলাম। আমাদের বাসেই সফর করেছে সাদা চামড়ার একটা বিদেশী দল, হয়তো বা ইউরোপের হবে। সেই দলের একজন এসে আমার কাছে জানতে চাইলো আমরা শ্রীনগর যাবো কি না? আমি হ্যাঁ বলাতে আমরা কিভাবে যাবো তা জানতে চাইলো, আমি তখন তাকে বললাম আমরা আগে থেকে গাড়ি ঠিক করে রেখেছিলাম সেটা দিয়েই এখন শ্রীনগর যাবো। ভাড়া কত লাগবে সেটা জানতে চাইলে আমার জানা না থাকাতে তাকে কোন সাহায্য করতে পারলাম না।....আরো পড়ুন

স্বপ্নের লাদাখ ভ্রমণ- ন্যাড়া পাহাড়ের টানে| মোঘল রোড স্পেশাল (পর্ব ১৩)

আল-আমিন সরকার

জম্মুতে নেমে সবাই ফ্রেশ হয়ে নিলাম। আমাদের বাসেই সফর করেছে সাদা চামড়ার একটা বিদেশী দল, হয়তো বা ইউরোপের হবে। সেই দলের একজন এসে আমার কাছে জানতে চাইলো আমরা শ্রীনগর যাবো কি না? আমি হ্যাঁ বলাতে আমরা কিভাবে যাবো তা জানতে চাইলো, আমি তখন তাকে বললাম আমরা আগে থেকে গাড়ি ঠিক করে রেখেছিলাম সেটা দিয়েই এখন শ্রীনগর যাবো। ভাড়া কত লাগবে সেটা জানতে চাইলে আমার জানা না থাকাতে তাকে কোন সাহায্য করতে পারলাম না।....আরো পড়ুন

স্বপ্নের লাদাখ ভ্রমণ- ন্যাড়া পাহাড়ের টানে (পর্ব ১২)

আল-আমিন সরকার

বিকাল ৪ টা বেজে যাওয়াতে হোটেল থেকে ব্যাগ নিয়ে বাস টার্মিনালের দিকে হাটতে থাকি, উদ্দেশ্য জম্মু যাওয়ার বাস ধরবো। একটু পর থেকেই আমাদের নতুন প্ল্যানে ট্যুর শুরু হবে। যদিও আমাদের বাস সাড়ে পাঁচটায়, একটু আগে যাওয়ার কারণ হচ্ছে কিছু সময় আমরা বাস টার্মিনালের পাশ দিয়ে বয়ে চলা খরস্রোতা বিয়াস নদীর পাশে কাটাবো। লোকজনকে জিজ্ঞেস করে আমাদের বাস খুঁজে বের করি প্রথমে। তারপর চলে যাই বিয়াস নদীর তীরে।....আরো পড়ুন

স্বপ্নের লাদাখ ভ্রমণ- ন্যাড়া পাহাড়ের টানে (পর্ব ১১)

আল-আমিন সরকার

হোটেলে ফিরে গোসল সেরে নিলাম সবাই। তারপর হোটেল থেকে চেক আউট করে হোটেলের লবিতে ব্যাগ রেখে নাস্তা করতে একটা বাঙালি হোটেলে যাই, যেখানে গত বারের মানালি ট্যুরে কয়েকবার খাওয়া হয়েছিল। হোটেলটা ছিল আমাদের থাকার হোটেলের ঠিক সামনে হিমালয় নিনমাপা তিব্বতিয়ান মনেস্ট্রির নিচ তলায়। সেখানে গিয়ে জানতে পারলাম তারা তাদের লোকেশন চেঞ্জ করেছে। তাদের দেওয়া ঠিকানা অনুযায়ী সেই হোটেল খুঁজে বের করে লুচি আলুর দম দিয়ে নাস্তা করলাম সাথে চা। নাস্তা শেষে হাদিম্বা টেম্পল ঘুরেতে বেরিয়ে পড়ি।....আরো পড়ুন

স্বপ্নের লাদাখ ভ্রমণ- ন্যাড়া পাহাড়ের টানে (পর্ব ১০)

আল-আমিন সরকার

ফোনের এলার্মের শব্দে রাত ৩ টা ৩০ এ আমাদের ঘুম ভাঙে। ওয়াশরুমের পানি এতটাই ঠান্ডা যে জরুরী কাজকর্ম সারবো নাকি সারবো না সে নিয়ে দোটানায় পড়ে গেছি। রাত ৩:৪৫ এ গাড়ির ড্রাইভারকে ফোন দেই সে আসছে কিনা তা জানতে। সে বলল আপনারা রাস্তায় বেরিয়ে আসুন আমি আপনাদের পিক করে নিবো। চারটা বাজার ৫ মিনিট আগেই আমরা মেইন রোডে চলে আসি। ড্রাইভারকে আবার ফোন দিয়ে আমাদের অবস্থান জানানোর ৫ মিনিটের মধ্যেই আমাদের সামনে চলে আসেন। ভোর চারটার মধ্যে না বের হলে পাহাড়ী রাস্তায় কিছু কিছু জায়গাতে খুব বেশি জ্যামে পড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে যার কারণে কপাল খারাপ থাকলে ফিরে আসতে বিকেল হয়ে যেতে পারে।....আরো পড়ুন

স্বপ্নের লাদাখ ভ্রমণ- ন্যাড়া পাহাড়ের টানে - পর্ব ০৯(নতুন করে স্বপ্ন দেখা)

আল-আমিন সরকার

দোকানিরা রাস্তার পাশে নানান ধরনের স্ট্রীট ফুডের পসরা নিয়ে বসে আছেন, সেগুলো রাতে টেস্ট করবো। দিনের আলো থাকতে থাকতে মল রোডের সাথে লাগোয়া ট্যাক্সি স্ট্যান্ডে লাদাখ যাওয়ার ব্যাপারে গাড়ির ড্রাইভারদের সাথে কথা বলতে গিয়ে জানতে পারলাম ১০ জুনের আগে মানালি-লেহ রোড খোলার সম্ভবনা নাই। রোথাং পাস খুললেও বার-লা-চালা পাস এখনো খুলে দেওয়ার মত পরিস্থিতি হয় নি, সেখানে এখনো কিছু বরফ রাস্তায় রয়ে গেছে। সবারই মন খারাপ হয়ে যায়, আমাদের খারাপ ধারণা এখন বাস্তবে পরিণত হয়েছে।....আরো পড়ুন

স্বপ্নের লাদাখ ভ্রমণ- ন্যাড়া পাহাড়ের টানে (পর্ব-৮)

আল-আমিন সরকার

সামনে রাস্তার কনস্ট্রাকশনের কাজ চলছিল তাই গাড়ির গতি আরো কমে গেল। মনে হচ্ছিল অনন্ত সময়ের জন্য ছুটে চলেছি। রাস্তার এমন বেহাল দশার কারণে সন্ধ্যার আগে মানালি পৌঁছাতে পারবো কিনা তাই নিয়ে সন্দেহ করছি এখন। পথে ২.৭ কিলোমিটার লম্বা কুল্লু টানেল এর ভিডিও করতে নিজের সিট ছেড়ে সামনে চলে যাই যাতে ভালভাবে ভিডিও করা যায়। একই টানেল এইবার নিয়ে আমার দ্বিতীয় বার, এর থেকে বড় টানেল আমি দেখিনি। টানেল শেষ করে পিচ ঢালা পথে ছুটে চলেছে আমাদের গাড়ি। ....আরো পড়ুন

সাদা ও সবুজ স্বপ্নের সন্ধানে (মানালি-লেহ-কাশ্মীর ভ্রমন) ২য় পর্ব

মোঃ সাকিব হোসেন

সাত সকালে ঘুম থেকে উঠে চোখ খুলে যা দেখলাম তাতে শুধু চোখ এ জুড়ালো না, মন প্রান, কলিজা, ফেপড়া সব জুড়িয়ে গেল। একপাশে পাহাড়ি রাস্তা, শুধু পাহাড় আর অন্য পাশে বহমান নদী আর আঁকাবাঁকা পথ। আঁকাবাঁকা পথ সাথে বিয়াস নদীর স্রোতের শব্দে আর প্রাকৃতিক সুন্দর্যে মন ভরে যায়। মানালি পর্যন্ত এই বিয়াস নদী ধরেই এগুতে থাকবেন আর বিমোহিত হতে থাকবেন। মানালি যাওয়ার পথে বাসের ডানপাশে বসার চেস্টা করবেন বেস্ট এক্সপেরিয়েন্স এর জন্য। কিছুক্ষন পর কুল্লু শহরে এসে পৌঁছলাম। কুল্লুও এত সুন্দর মনে হয় ২-১ দিন শুধু এখানেই থাকি। এদিকের বিখ্যাত রাফটিং, প্যারাসেইলিং মূলত কুল্লুর টাই বেশি নামকরা। ....আরো পড়ুন

স্বপ্নের লাদাখ ভ্রমণ- ন্যাড়া পাহাড়ের টানে (পর্ব ৭)

আল-আমিন সরকার

ভোর ৪ঃ৫০ এর দিকে ঘুম ভেঙে গেল। আমাদের বাস আম্বালার কোন একটা পেট্রোল পাম্পে তেল নিচ্ছিল তখন। আমিও এই সুযোগে গাড়ি থেকে নেমে ফ্রেশ হয়ে নিলাম, আমার দেখাদেখি আরও কয়েকজন। তেল নেয়া শেষে গাড়ি আবার চলতে শুরু করলো, আধো আলো-অন্ধকারে ভোরের শহুরে সৌন্দর্য উপভোগ করছিলাম। রাস্তায় ফ্লাইওভারের কাজ চলাতে মাঝে মাঝেই গাড়ি থেমে যাচ্ছিল। নিরব নিস্তব্ধ শহরের ইট পাথরের অট্টালিকা পেরিয়ে সুবুজ প্রান্তরে ছুটে চলেছি। এবার কখন যে ঘুমিয়ে পড়েছি টের পাইনি। ...... আরো পড়ুন

গুয়াংজুতে প্রথম দিন-শেষ পর্ব

কম্পিউটারাইজড টিকেটে ডেসটিনেশন চাইনিজ এ লেখা কিন্তু গেট নং ইংরেজিতে লেখা। দেড় ঘন্টা পর বাস। কিছুই করার নাই, চলে গেলাম তিন তলায়। ওখান থেকেই বাস ছাড়বে। গিয়ে দেখি ঐ গেটের সামনে বাস দাড়িয়ে আছে। তাড়া তাড়ি চলে গেলাম বাসে উঠবো, গেটে যে এটেনডেন্ট মেয়েটি ছিল, ওকে আমার টিকেট দেখালাম। ...... আরো পড়ুন

স্বপ্নের লাদাখ ভ্রমণ- ন্যাড়া পাহাড়ের টানে (পর্ব ৬)

আল-আমিন সরকার

বাস স্টপ বা বাস টার্মিনাল বলতে আমরা যা বুঝি তা হলো গাবতলি বা সায়েদাবাদের মত বড় কোন জায়গা যেখানে অনেক বাস থাকবে সাথে বাস কাউন্টার। মজনু কা টিলাতে আশেপাশে কোন বাস কাউন্টার বা যাত্রী ছাউনি না থাকায় আমরা খুব কনফিউশনে পড়ে যাই, আমরা কি কোন ভুল জায়গায় চলে আসছি!!? অটোওয়ালা নিশ্চয়ই আমাদের টুপি পরিয়েছে যা কিনা টুরিস্টদের সাথে অহরহ হয় এখানে। ...... আরো পড়ুন

সাদা ও সবুজ স্বপ্নের সন্ধানে (মানালি-লেহ-কাশ্মীর ভ্রমন) ১ম পর্ব

সাকিব হোসেন

অনেকদিনের ইচ্ছা ছিল লম্বা একটা ট্যুর দিব কিন্তু অফিসের ছুটি ম্যানেজ করতে না পারায় সম্ভব হচ্ছিল না।অবশেষে একটা সুবর্ন সুযোগ পেলাম। আমি ও আমার এক কলিগ (আমরা আগেও একসাথে দার্জিলিং ট্যুর দিয়েছিলাম) মিলে ঠিক করলাম যত দিন লাগে লাগবেই এবার পুরোটা কাভার করেই আসব।মূল প্ল্যান হল মানালী থেকে বাই রোডে লেহ যাব। কিন্তু সময়টা অক্টোবর এর মাঝামাঝি হয়ে যাওয়াতে একটা কনফিউশন হয়ে যায় অই সময় রোড খোলা থাকবে কিনা? শুরু করলাম বিভিন্ন ব্লগ, ফেসবুক গ্রুপ স্টাডি। কেউ বলে সেপ্টেম্বর এর ১৫ তারিখের পর থেকেই বন্ধ, কেউ বলে নভেম্বর পর্যন্ত হয়ত খোলা পাওয়া যাবে। কিন্তু আমরা জানি যে এইবার যদি না যাওয়া হয় তাহলে হয়ত আর কোনদিন সম্ভব হবে না কারন একটানা এতদিন ছুটি ম্যানেজ করা যাবে না। ...... আরো পড়ুন

স্বপ্নের লাদাখ ভ্রমণ- ন্যাড়া পাহাড়ের টানে- পর্ব ৫ (দিল্লী মেট্রো বিড়ম্বনা)

আল-আমিন সরকার

তিন-চার মিনিটের মধ্যেই মেইন রোডে চলে আসি। বাম দিকে সামান্য একটু হাটতেই গুগোল ম্যাপ অনুযায়ী মেট্রো স্টেশনে পৌছে যাই। কিন্তু এখানে কিছুই চোখে পড়ছে না। না আছে কোন স্টেশনের বিল্ডিং, না আছে শত শত মানুষের আনাগোনা। জিজ্ঞেস করবো এমন কাউকেও পাচ্ছি না। কি একটা অবস্থা!!! আর সামান্য একটু সামনে যেতেই বাম পাশে একটা লিফট লক্ষ করলাম, ধারনা হলো মেট্রো স্টেশন হয়তো মাটির নিচে হবে। তাছাড়া এমন জায়গায় লিফট থাকার অন্য কোন কারণ থাকার কথা না। ...... আরো পড়ুন

স্বপ্নের লাদাখ ভ্রমণ- ন্যাড়া পাহাড়ের টানে - চতুর্থ পর্ব (প্রথম বিমান যাত্রা)

আল-আমিন সরকার

বিমান রানওয়ের স্পর্শ ছেড়ে আলতো ভাবে হাওয়ায় ভাসতে শুরু করলো। প্রথমবার বিমান যাত্রা হওয়াতে শুনতে বোকার মত শোনা গেলেও, হাওয়ায় ভাসার কয়েক সেকেন্ড পর আমার মনে হয়েছিল হয়তোবা বিমান আর উঠতে পারবে না 😁😁। জানালা দিয়ে নিচে তাকাতেই নিচের বাড়িঘর রাস্তাঘাট গুলো গুগুল ম্যাপে জুম আউট করার মত ছোট থেকে ছোট হয়ে যাচ্ছিল। ছোটবেলা থেকেই উচ্চতা জনিত সমস্যাটা পুরোপুরি কাটিয়ে উঠতে পারিনি, এখনো ২০% রয়ে গেছে। আমার মাথায় কেমন যেন চক্কর দিতে লাগল।...... আরো পড়ুন

ইলিশের বাড়ি চাঁদপুরে ডে ট্রিপ

চাঁদপুরের ত্রিমোহনার নাম অনেক শুনেছি কিন্তু কখনো যাওয়া হয় নি। হালিম ভাই যাওয়ার প্রস্তাব দিতেই আমি রাজি হয়ে গেলাম। যদিও আমাদের যাওয়ার প্ল্যান প্রথমবার মুখ থুবড়ে পড়ে। সোমবার সকালে কক্সবাজার ট্যুর শেষ করে আসলাম আর সন্ধায় হালিম ভাইয়ের মেসেজ বুধবারে চাঁদপুর যেতে হবে ডে ত্রিপে। আমি দ্বিতীয়বার না ভেবে রাজি হয়ে গেলাম। যেহেতু আমি আশুলিয়া থেকে সদরঘাট যাবো তাই হালিম ভাই আমাকে খিলগাঁও হয়ে যেতে বললেন, কারণ খিলগাঁও থেকে রাফসান ভাই যাবেন। সকাল ৬ টায় চাঁদপুর যাওয়ার প্রথম লঞ্চ ছেড়ে যাবে। তাই আমি রাত ৩ টায় ঘুম থেকে উঠে ফ্রেশ হয়ে রেডি হয়ে মেইন রোডে চলে আসি। ০৩ টা ২০ এ খিলগাঁও হয়ে যাবে এমন একটা বাসে উঠে পড়ি।...... আরো পড়ুন

লোনাভালাতে একদিন প্রথম পর্ব

মোবাইলে দেওয়া এলার্মের শব্দে ঘুম ভাঙলো রাত ০৩:৩০ মিনিটে। সবাইকে ঘুম থেকে তুলে যারা ইন্ডিয়ান সহযাত্রী ছিল তাদের কাছ থেকে বিদায় নিয়ে নিলাম। নির্দিষ্ট সময়ের 10 মিনিট পর ট্রেন পুনে স্টেশনে প্রবেশ করল। স্টেশনে নেমেই আমাদের পরবর্তী গন্তব্য লোনাভালা যাওয়ার উদ্দেশ্যে লোকাল ট্রেনের টিকেট কাটতে লাইনে দাঁড়িয়ে গেলাম, ভাড়া জনপ্রতি ১৫ রুপি। বাকিরা এক এক করে স্টেশনের ওয়েটিং রুম থেকে ফ্রেশ হয়ে আসলো। নিজেও ফ্রেশ হয়ে ট্রেন ছাড়ার নির্দিষ্ট প্লাটফর্মে গিয়ে ট্রেনের অপেক্ষা করতে থাকলাম। ভোর 4:30 এ ট্রেন এসে হাজির হয়। এটাই মনে হয় প্রথম ট্রেন...... আরো পড়ুন

স্বপ্নের লাদাখ ভ্রমণ- ন্যাড়া পাহাড়ের টানে - প্রথম পর্ব

"বেহতি হাওয়াসা থা ওঃ, উড়তি পাতাঙ সা থা ওঃ" আমির খানের বিখ্যাত থ্রি ইডিয়টস মুভির গানের অংশ। থ্রি ইডিয়টস মুভি দেখার পর থেকেই লাদাখ যাওয়ার প্রবল ইচ্ছা ছিল। ২০১৯ সালের রোজার ঈদে সেই স্বপ্ন ৬০% পূরণ হল। ১০০% কেন পূরণ হলো না সেই কথায় পরে আসছি। স্বপ্ন পূরণের উদ্দেশে বিমান টিকেট করে ফেলেছিলাম ২০১৯ এর জানুয়ারিতেই। সময় যতই কাছে আসছিল ততই মনে ভয় হচ্ছিল যে, মানালি থেকে লেহ যাওয়ার রাস্তা ঠিক মত খুলবে তো এই বছর!!! আরো পড়ুন

গুয়াংজুতে প্রথমদিন ১ম পর্ব

চায়না তে গিয়ে অনেকে অনেক ধরনের সমস্যা তে পড়ে। এর মধ্যে ভাষাগত সমস্যা টাই অধিক। Guangzhou তে, প্রথম দিনে আমি কি সমস্যা তে পড়েছি , সেটাই বলবো আজ। ... আরো পড়ুন

গুয়াংজুতে প্রথমদিন ২য় পর্ব

ঢাকা থেকে কুনমিং হয়ে গুয়াংজু যেতে যে টাকা খরচ হচ্ছে , তার থেকে কম খরচে কুয়ালালামপুর হয়ে যেতে পারবো প্লাস কুয়ালালামপুর শহর টাও আবার সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ঘুরতে পারবো। এই লোভে বিমানের ঢাকা কুল ঢাকা টিকেট নিলাম। আর ২৪ ঘন্টা পর এয়ার এশিয়ার কুল গুয়াংজু এর টিকেট নিলাম। (রিটার্ন ১৫ দিন পর )......আরো পড়ুন

স্বপ্নের লাদাখ ভ্রমণ- ন্যাড়া পাহাড়ের টানে - দ্বিতীয় পর্ব

দমদম পর্যন্ত সবার টিকিট কেটে নির্দিষ্ট প্লাটফর্মে চলে যাই। বনগাঁ লোকালে যাওয়ার একটা অন্যতম সুবিধা হচ্ছে, বনগাঁ থেকে যেহেতু ট্রেনটা ছাড়ে সেজন্য সিট পেতে তেমন অসুবিধা হয় না। যেহেতু অফিস টাইম শেষ তাই দিনের বেলা যেরকম ভিড় হয় তেমন ভিড় হবে না আশা করা যায়। এই ট্রেনের সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে কম টাকায়, কম সময়ে কলকাতা পৌঁছানো যায়। ! আরো পড়ুন

আগ্রা ভ্রমণ

মেহেদী নূর আলম

আগের দিন বিকাল ৪টায় মানালি থেকে বাসে চড়ে সকাল ৮ টায় দিল্লী পৌছালাম টানা ১৬ ঘন্টা জার্নি করে। তারপর দিল্লীর নিজামউদ্দিন রেলস্টেশন থেকে আগ্রার উদ্দেশ্যে ট্রেনে উঠলাম সকাল ৯ টায়। দুপুর ১২ টা নাগাদ আগ্রা ক্যান্টনমেন্ট স্টেশনে নামলাম। স্টেশনের লকারে (Cloak Room) ১৫ রুপির বিনিময়ে সব ব্যাগপত্র রেখে শুধু ক্যামেরা ব্যাগ নিয়ে বেরিয়ে পড়লাম অটোরিক্সা খুজতে। আরো পড়ুন

লোনাভালাতে একদিন - শেষ পর্ব

সকালে থেকে একটু আফসোস হচ্ছিল কারন পুনে থেকে লোনাভালা যতদূর লোনাভালা থেকে মুম্বাই আর সামান্য একটু বেশি দূর। হাতে একটু সময় বেশি থাকলে মুম্বাইয়ে একটা শর্ট ট্যুর হয়ে যেত। কিন্তু চোখের সামনে এমন অনাকাঙ্খিত সৌন্দর্য দেখে সেই আফসোস আর রইলো না। অনাখাঙ্খিত এই কারণেই বললাম যে, আমাদের এই গোয়া ট্যুরে লোনাভালা কখনোই আসা হতো না যদি না গোয়া থেকে সরাসরি কলকাতার ট্রেন টিকেট পেতাম। গোয়া থেকে লোনাভালা আসতে ১৫ ঘণ্টার জার্নি না শুধু এর চাইতেও বেশি সময়ের জার্নির ক্লান্তি দূর করতেও এমন প্রকৃতির সান্নিধ্যই যথেষ্ট। যেহেতু বিকেলে বিশাখাপত্তম যাওয়ার ট্রেন আছে তাই এখানে আর বেশি দেরী করা যাবে না।...... আরো পড়ুন

স্বপ্নের লাদাখ ভ্রমণ- ন্যাড়া পাহাড়ের টানে - তৃতীয় পর্ব (প্রথম বিমান যাত্রা)

সসকাল ১০ টায় ঘুম থেকে উঠে ফ্রেশ হয়ে গোসল শেষে সাড়ে এগারোটার দিকে হোটেল থেকে চেক আউট করি। মেইন রোডে এসে মতিউর ভাইকে হাওড়া গামী বাসে উঠিয়ে দিলাম, কারণ তার সিএমসি হাসপাতালে (ভেলর) যাওয়ার জন্য ট্রেন রাতে শালিমার থেকে ছাড়বে। যেহেতু সে প্রথমবার কলকাতায় এসেছেন তাই হাওড়া থেকে শালিমার কিভাবে যেতে হয় তা ভালভাবে বুঝিয়ে দিয়েছি তাকে। ...... আরো পড়ুন